রবিবার, ১৬ মে ২০২১, ১১:০১ পূর্বাহ্ন

ওমানে আজ আক্রান্তের চেয়ে সুস্থ বেশি

ওমান প্রতিনিধিঃ
    প্রকাশিত: মঙ্গলবার, ২৭ এপ্রিল, ২০২১
ওমানে আজ করোনার ব্যাপক উন্নতি

বিশ্বব্যাপী করোনার তাণ্ডব চলছে। দিন দিন আরও ভয়ংকর হয়ে উঠছে এ ভাইরাস। প্রতিদিনই দীর্ঘ হচ্ছে মৃত্যুর মিছিল, আক্রান্তও হচ্ছে লাখে লাখে। মহামারি এ ভাইরাসের নতুন নতুন ধরন মানুষের মনে আতঙ্ক বাড়িয়ে দিয়েছে। করোনার টিকা আবিষ্কার হলেও এখনও আতঙ্কে বিশ্ববাসী। এরই মধ্যে মধ্যপ্রাচ্যের দেশ ওমানে মোট আক্রান্তের সংখ্যা প্রায় দুই লাখের কাছাকাছি এসে দাঁড়িয়েছে।

মঙ্গলবার (২৭-এপ্রিল) ওমান স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের দেওয়া তথ্য অনুসারে দেশটিতে আজ নতুন আক্রান্তের চেয়ে সুস্থ রোগীর সংখ্যা বেশি। আজ নতুন আক্রান্তের সংখ্যা ১ হাজার ১২৮ জন এবং সুস্থের সংখ্যা ১ হাজার ১৪৫ জন। গতকালের তুলনায় আজ আক্রান্ত কমেছে ৩০৯ জন। তবে আজ মৃত বেড়েছে ৩ জন। দেশটিতে মৃত এবং আইসিইউতে ভর্তি রোগীর সংখ্যা এখনো উদ্বেগজনকহারে বাড়ছে।

 

বর্তমানে আইসিইউতে ভর্তি রোগীর সংখ্যা ২৮৩ জন। এখন পর্যন্ত মোট আক্রান্তের সংখ্যা ১ লাখ ৯১ হাজার ৩৯৮ জন। অপরদিকে মোট সুস্থের সংখ্যা ১ লাখ ৭০ হাজার ৯২৯ জন। আজ ৯ জনের মৃত সহ মোট মৃতের সংখ্যা ১ হাজার ৯৯২ জন। গত ২৪ ঘন্টায় নতুন সুস্থের সংখ্যা ১ হাজার ১৪ জন।

গত ২৪ ঘণ্টায় দেশটির বিভিন্ন হাসপাতালে নতুন ভর্তি রোগীর সংখ্যা ৯৩ জন। এখন পর্যন্ত দেশটির বিভিন্ন হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় আছেন ৮১৪ জন। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে নিতে ওমান সরকারের সকল নির্দেশনা মেনে চলতে নাগরিক এবং প্রবাসীদের অনুরোধ জানিয়েছে ওমান স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়। অন্যথায় আইন অমান্যকারীদের বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা নেওয়ার হুশিয়ারি দিয়েছে ওমান সুপ্রিম কমিটি।

 

এদিকে ক্রমেই ভয়াবহ আকার ধারণ করছে ভারতের করোনা পরিস্থিতি। এই মুহূর্তে রাজধানী দিল্লিতে মৃতদেহ সৎকারের জায়গা পর্যন্ত নেই বলে জানা গেছে ভারতীয় গণমাধ্যমের প্রতিবেদনে। সাধারণত দিল্লিতে যত সংখ্যক মৃতের সৎকার হয়ে থাকে, তার থেকে বহুগুণ বেশি মৃতদেহ রোজ আসছে শ্মশান ও কবরস্থানে। গত ১০ দিনে এমনই ঘটনার সাক্ষী দিল্লি। এ পরিস্থিতিতে মৃতদেহ দাহ করার কাঠ ফুরিয়ে গেছে বহু শ্মশানে। কাঠের অভাবে কেয়ারটেকারকে বাধ্য হয়ে বন্ধ করে দিতে হয়েছে শ্মশানের দরজা।

দিল্লির রাস্তায় লোক নেই। মন্দির, মসজিদ, গির্জাও সেভাবে ভর্তি নয়। জনসমাগম শুধুই হাসপাতালগুলোতে। আর সেখান থেকে বেরিয়ে আসা একের পর এক মরদেহ সৎকারে হয়রানি, ভোগান্তি সাধারণ মানুষের। এমনই দাবি করা হয়েছে বেশ কয়েকটি গণমাধ্যমের রিপোর্টে।

চিতার কাঠও পাওয়া যাচ্ছে না দিল্লিতে

করোনার জেরে শ্মশানের জন্য জমি বাড়াতে হচ্ছে দিল্লিতে। আরও ৫০টি নতুন প্ল্যাটফর্ম তৈরি করা হয়েছে সৎকারের জন্য। অন্ত্যেষ্টিক্রিয়া সম্পন্নে ছাড় পাচ্ছে না পার্কিং লটগুলো। দিল্লির গাজীপুরে এমনই পার্কিং লটে চিতা জ্বালানোর বন্দোবস্ত করা হচ্ছে। যে হারে করোনায় দিল্লিতে মৃত্যু মিছিল অব্যাহত রয়েছে, তাতে পরিস্থিতি ক্রমাগত ভয়াবহ হচ্ছে। শুধু কবরস্থান নয়, মৃত্যুর চাপে একই পরিস্থিতি শ্মশানেই। সেখানেও চিতার আগুন নিভছে না। আরও চিতা রাখার জন্য জায়গা তৈরি করা হচ্ছে।

 

আরো দেখুনঃ

প্রবাস টাইম সব ধরনের আলোচনা-সমালোচনা সাদরে গ্রহণ ও উৎসাহিত করে। অশালীন ও কুরুচিপূর্ণ মন্তব্য পরিহার করুন। এটা আইনত দণ্ডনীয় অপরাধ।
রিলেটেড নিউজ
© 2020 সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত | এই ওয়েবসাইটের লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি
Technical Support By NooR IT