বুধবার, ১৬ জুন ২০২১, ০৫:১২ অপরাহ্ন

ওমানে আক্রান্ত কমলেও মৃত ঊর্ধ্বমুখী

ওমান প্রতিনিধিঃ
    প্রকাশিত: রবিবার, ৯ মে, ২০২১
ওমানে আজও বাড়ল করোনায় নতুন আক্রান্ত

করেনার নতুন ঢেউয়ে বিপর্যস্ত গোটা বিশ্ব। প্রতিদিন লাফিয়ে লাফিয়ে বাড়ছে আক্রান্ত এবং মৃতের সংখ্যা। মধ্যপ্রাচ্যের দেশ ওমানে ইদানীং আক্রান্তের সংখ্যা কমতে শুরু করলেও মৃত্যুর সংখ্যা এখনো ঊর্ধ্বমুখী রয়েছে। রবিবার (৯-মে) ওমান স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের দেওয়া তথ্য অনুসারে দেশটিতে গত ৩ দিনে নতুন আক্রান্তের সংখ্যা ২ হাজার ৬ জন এবং মৃতের সংখ্যা ৩৭ জন। যেখানে গত রবিবার অর্থাৎ ২-মে দেশটিতে ৩ দিনে নতুন আক্রান্তের সংখ্যা ছিলো ২ হাজার ৫৫৪ জন এবং মৃতের সংখ্যা ছিলো ৩৩ জন। গত রবিবারের তুলনায় আজ আক্রান্ত কমেছে ৫৪৮ জন তবে মৃত বেড়েছে ৪জন।

 

মন্ত্রণালয়ের প্রকাশিত তথ্য অনুযায়ী গত বৃহস্পতিবার আক্রান্ত ছিলো ৭৬০ জন, শুক্রবার ৬১২ জন এবং শনিবার ৬৩৪ জন। অপরদিকে গত ৩ দিনে মোট সুস্থ রোগীর সংখ্যা ২ হাজার ৯৫১ জন। বর্তমানে আইসিইউতে ভর্তি রোগীর সংখ্যা ২৭৫ জন এবং মোট আক্রান্তের সংখ্যা ২ লাখ ১ হাজার ৩৫০ জন। যাদের মধ্যে এখন পর্যন্ত সুস্থ হয়ে ঘরে ফিরেছেন ১ লাখ ৮৪ হাজার ৬৪৭ জন। নতুন ৩৭ জনের মৃত সহ মোট মৃতের সংখ্যা ২ হাজার ১২০ জন।

গত ২৪ ঘণ্টায় দেশটির বিভিন্ন হাসপাতালে নতুন ভর্তি রোগীর সংখ্যা ৮৪ জন। এখন পর্যন্ত দেশটির বিভিন্ন হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় আছেন ৭৫২ জন। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে নিতে ওমান সরকারের সকল নির্দেশনা মেনে চলতে নাগরিক এবং প্রবাসীদের অনুরোধ জানিয়েছে ওমান স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়। অন্যথায় আইন অমান্যকারীদের বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা নেওয়ার হুশিয়ারি দিয়েছে ওমান সুপ্রিম কমিটি।

 

এদিকে করোনার ভারতীয় ধরন আরও ভয়ংকর উল্লেখ করে সবাইকে সতর্ক থাকার আহ্বান জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। রোববার (৯ মে) সকালে গণভবন থেকে ভিডিও কনফারেন্সে পূর্বাচল প্রকল্পে ‘মূল অধিবাসী ও সাধারণ ক্ষতিগ্রস্ত’ এ দুটি ক্যাটাগরিতে মোট ১ হাজার ৪৪০টি প্লট বরাদ্দপত্র প্রদান অনুষ্ঠানে তিনি এ আহ্বান জানান।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, করোনা মহামারির সময় আপনারা মাস্ক পরে থাকবেন, সাবধানে থাকবেন। কারণ নতুন একটা ভাইরাস এসেছে, এটা আরও বেশি ক্ষতিকর, যাকে ধরে সঙ্গে সঙ্গে তার মৃত্যু হয়। যারা বিক্ষিপ্তভাবে ঈদে বাড়ি ফিরছেন তারা গ্রামে থাকা স্বজনদের মৃত্যুঝুঁকিতে ফেলতে যাচ্ছেন মন্তব্য করে তিনি আরও বলেন, জানি ঈদের সময় মানুষ পাগল হয়ে গ্রামে ছুটছেন, এই যে, আপনারা একসঙ্গে বাড়ি যাচ্ছেন, চলার পথে- ফেরিতে হোক বা গাড়িতে হোক, আর লঞ্চে হোক কার যে করোনাভাইরাস আছে আপনি জানেন না। সুতরাং আপনি সেটা বয়ে নিয়ে যাচ্ছেন আপনার পরিবারের কাছে। মা-বাবা, দাদা-দাদি ও ভাইবোন যারাই থাকুক বাড়িতে আপনি কিন্তু তাদের সংক্রমিত করবেন। তাদের জীবনটাও মৃত্যুঝুঁকিতে ফেলে দেবেন আপনি।

 

আরো দেখুনঃ

প্রবাস টাইম সব ধরনের আলোচনা-সমালোচনা সাদরে গ্রহণ ও উৎসাহিত করে। অশালীন ও কুরুচিপূর্ণ মন্তব্য পরিহার করুন। এটা আইনত দণ্ডনীয় অপরাধ।
রিলেটেড নিউজ
© 2020 সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত | এই ওয়েবসাইটের লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি
Technical Support By NooR IT