প্রবাস টাইম
ঢাকামঙ্গলবার , ১৫ জুন ২০২১
  1. অন্যান্য
  2. অপরাধ
  3. আন্তর্জাতিক
  4. ওমান
  5. করোনা আপডেট
  6. কৃষি
  7. খেলাধুলা
  8. খোলা কলম
  9. চাকরি
  10. জাতীয়
  11. জানা অজানা
  12. জীবনের গল্প
  13. ধর্ম
  14. প্রতিনিধি
  15. প্রবাস
আজকের সর্বশেষ সবখবর

একসঙ্গে চার সন্তান জন্ম দিলেন ওমান প্রবাসীর স্ত্রী

প্রতিবেদক
Desc
জুন ১৫, ২০২১ ৫:১৬ অপরাহ্ণ
Link Copied!

একসঙ্গে চার কন্যা সন্তান জন্ম দিয়েছেন ওমান প্রবাসী মো. আলম পাটোয়ারির স্ত্রী সালমা আক্তার (২৪)। সোমবার (১৪ জুন) বিকেল ৪ টার দিকে ফেনী শহরের ডা. হায়দার ক্লিনিকে সিজার অপারেশনের মাধ্যমে চার কন্যা সন্তানের জন্ম দেন । তিনি ফেনীর ফুলগাজী উপজেলার জিএমহাট ইউনিয়নের শরীফপুর পাটোয়ারী বাড়ির বাসিন্দা।

অপারেশন পরিচালনাকারী গাইনি বিশেষজ্ঞ ডা. তাহমিনা সুলতানা নিলু চার কন্যা সন্তান জন্মের বিষয়ে বলেন, বিকাল ৪টার দিকে সিজার অপারেশনের মাধ্যমে ওই গৃহবধূ পর্যায়ক্রমে চারটি কন্যা সন্তান প্রসব করেন। মা ও তার চার নবজাতক সুস্থ আছেন।তারপরও তাদের আমরা বিশেষ পর্যবেক্ষণে রেখেছি।

মাস্কাট টু ঢাকা ফ্রি এয়ার টিকিট পেতে ছবির উপর ক্লিক করুনঃ

 

প্রবাসী আলম পাটোয়ারির স্বজনর জানান, সোমবার দুপুরে প্রসব ব্যথা শুরু হলে গৃহবধূ সালমাকে ফেনী শহরের ‘ডা. হায়দার ক্লিনিকে’ নিয়ে আসলে চিকিৎসক তার অবস্থা দেখে সিজারের জন্য পরামর্শ দেন। পরে বিকেল ৪ টার দিকে সিজার অপারেশনের মাধ্যমে চার কন্যা সন্তানের জন্মদেন তিনি।

নবজাতকদের চাচা মো. আনোয়ার হোসেন পাটোয়ারী বলেন, এর আগে দুটি সন্তানের কথা ডাক্তার ও আল্ট্রাসনোগ্রাফির মাধ্যমে নিশ্চিত হই। তবে সোমবার বিকেলে সিজার অপারেশন মাধ্যমে সে চারটি কন্যা সন্তানের জন্ম দেয়। এর আগেও তার চার বছরের একটি ছেলে সন্তান রয়েছে। এক সঙ্গে চার কন্যা সন্তান পেয়ে আমদের পরিবার ও স্বজনরা খুশি। যৌথ পরিবার হওয়াতে চার সন্তানের লালন পালনে কোনো সমস্যা হবে না বলেও জানান তিনি।

 

খবরটি শোনার পর বিভিন্ন শ্রেণির মানুষ ও গণমাধ্যম কর্মীরা হাসপাতালে ভিড় জমাচ্ছে বলে জানান হাসপাতালের পরিচালক মো.সায়েম। তিনি বলেন, আমরা নবজাতক ও তাদের মাকে কেবিনে থাকার ব্যবস্থার পাশাপাশি বিশেষ পর্যবেক্ষণ করছি। আমাদের হাসপাতালে একসাথে চার সন্তান জন্মদানের ঘটনা এটি প্রথম হওয়ায় আগামী দুই বছর পর্যন্ত এই চার শিশুর চিকিৎসা সেবায় বিশেষ ছাড় দেয়ার সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে।

 

আরো দেখুনঃ

প্রবাস টাইম সব ধরনের আলোচনা-সমালোচনা সাদরে গ্রহণ ও উৎসাহিত করে। অশালীন ও কুরুচিপূর্ণ মন্তব্য পরিহার করুন। এটা আইনত দণ্ডনীয় অপরাধ।