প্রবাস টাইম
ঢাকাবৃহস্পতিবার , ২৭ জানুয়ারি ২০২২
  1. অন্যান্য
  2. অপরাধ
  3. আন্তর্জাতিক
  4. আমেরিকা
  5. ইউরোপ
  6. এশিয়া
  7. ওমান
  8. করোনা আপডেট
  9. কৃষি
  10. খেলাধুলা
  11. খোলা কলম
  12. চাকরি
  13. জাতীয়
  14. জানা অজানা
  15. জীবনের গল্প
আজকের সর্বশেষ সবখবর

ওমানে ওমিক্রনে আক্রান্ত ২২ হাজার নাগরিক

প্রতিবেদক
ডেস্ক রিপোর্ট
জানুয়ারি ২৭, ২০২২ ২:২৫ অপরাহ্ণ
Link Copied!

ওমানে বেশ কয়েক মাস যাবত করোনা নিয়ন্ত্রণে থাকলেও সম্প্রতি দেশটিতে ফের আশঙ্কাজনকহারে বাড়তে শুরু করেছে সংক্রমণ। চলতি মাসে দেশটিতে করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন প্রায় ২২ হাজার নাগরিক যাদের মধ্যে মারা গেছেন ১৭ জন।

টাইমস অফ ওমানে দেওয়া এক সাক্ষাতকারে দেশটির ডাটা বিশ্লেষক ও সমাজকর্মী ইব্রাহিম আল মাইমানি জানিয়েছেন, “গত ২৫শে জানুয়ারি পর্যন্ত দেশটিতে নতুন করে করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন ২২ হাজার ৭১৮ জন। দৈনিক গড় আক্রান্ত হয়েছেন প্রায় ৮৭৪ জন।

unimoni oman

আক্রান্ত বাড়লেও সুস্থ হয়েছেন হাজারে প্রায় ৯৩.৭ শতাংশ। চলতি মাসে আক্রান্তের বিপরীতে দেশটিতে করোনায় সুস্থ হয়েছেন ১৬ হাজার ৪৮৮ জন। চলতি বছর হাসপাতালে ভর্তি রোগীর সংখ্যাও উল্লেখযোগ্য হারে বৃদ্ধি পেয়েছে। জানুয়ারির শুরুতে করোনায় আক্রান্ত হয়ে হাসপাতালে ভর্তি হয়েছিলো ১৪ জন।

বর্তমানে এই সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ২২৩ জন। বেড়েছে নিবিড় পরিচর্যা কেন্দ্রের (আইসিইউ) রোগীর সংখ্যাও। জানুয়ারির শুরুতে আইসিইউতে করোনায় আক্রান্ত হয়ে ভর্তি ছিলো ৪ জন, বর্তমানে এই সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ২৬ জনে।”

friendi mobile

আল মাইমানি আরও বলেন,” চলতি মাসে করোনায় আক্রান্ত হয়ে মারা গেছেন ১৭ জন নাগরিক। যেখানে ডিসেম্বরে এই সংখ্যা ছিল মাত্র ৩ জন ও নভেম্বরে ছিলো ২ জন। ওমান টিভিকে দেওয়া এক সাক্ষাতকারে ওমানের স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের ইনফেকশন প্রিভেনশন অ্যান্ড কন্ট্রোল ডিরেক্টর ডাঃ আমাল বিনতে সাইফ আল মানি জানিয়েছেন, “পরীক্ষাগার এবং করোনা মহামারির সংখ্যা বৃদ্ধিতে এটাই প্রমাণ হয় যে দেশটিতে করোনায় আক্রান্তের ৯৯ শতাংশই ওমিক্রন ডেল্টায় আক্রান্ত। দেশটিতে প্রতিরোধ ব্যবস্থা আরো কঠোর না করা গেলে আগামী দিনগুলোতে এই সংখ্যা আরো বাড়বে। ধারণা করা যাচ্ছে আগামী দিনগুলোতে সংক্রমণের হার বেড়ে ২৫ শতাংশ পর্যন্ত বেড়ে যেতে পারে।

 

আরো দেখুনঃ

প্রবাস টাইম সব ধরনের আলোচনা-সমালোচনা সাদরে গ্রহণ ও উৎসাহিত করে। অশালীন ও কুরুচিপূর্ণ মন্তব্য পরিহার করুন। এটা আইনত দণ্ডনীয় অপরাধ।