প্রবাস টাইম
বাংলাদেশবৃহস্পতিবার , ১৯ মে ২০২২
  1. অন্যান্য
  2. অপরাধ
  3. আন্তর্জাতিক
  4. আমেরিকা
  5. ইউরোপ
  6. এশিয়া
  7. ওমান
  8. করোনা আপডেট
  9. কৃষি
  10. খেলাধুলা
  11. খোলা কলম
  12. চাকরি
  13. জাতীয়
  14. জানা অজানা
  15. জীবনের গল্প
 
আজকের সর্বশেষ সবখবর

বিমানবালাকে যেসব প্রশ্ন করলে বিব্রতকর পরিস্থিতিতে পড়তে পারেন প্রবাসীরা 

মিসবাহ রবিন
মে ১৯, ২০২২ ৩:২৩ অপরাহ্ণ
Link Copied!

বিমানবালারা বেশ আন্তরিকতার সঙ্গেই যাত্রীদের সেবা করে থাকেন। দীর্ঘ যাত্রায় পানি, খাবার, কম্বল দেওয়া থেকে শুরু প্রাথমিক চিকিৎসা—সবকিছুতেই বিমানবালারা চেষ্টা করেন যেন যাত্রীসেবায় কোনো ত্রুটি না থাকে। তবে যারা নিয়মিত বিমানে চড়েন না, তারা হয়তো না বুঝেই অনেক প্রশ্ন করে ফেলেন। এতে বিমানবালারা বিরক্ত হতে পারেন, আবার বিব্রতকর পরিস্থিতিতে পড়তে পারেন আপনিও। 

Unimoni

বিব্রতকর প্রশ্নের মধ্যে রয়েছে, আমি কি ফার্স্ট ক্লাসের বাথরুম ব্যবহার করতে পারি? এ প্রশ্ন করে থাকেন অনেকেই। তারা হয়তো জানেন না, ফার্স্ট ক্লাসের বাথরুম শুধু যারা ফার্স্ট ক্লাসের জন্য টিকেট কেটেছেন, তাদের জন্যই বরাদ্দ। এ ধরনের প্রশ্ন করেও নিজের নির্বুদ্ধিতার পরিচয় দেওয়া হয় আর বিমানবালাদেরও বিব্রতকর পরিস্থিতিতে ফেলা হয়।

PK

আবার অনেকেই বিমানে ওঠার সঙ্গে সঙ্গে সামনের মনিটরে সিনেমা দেখতে চান। মূলত বিমান উড্ডয়ন-সংক্রান্ত প্রয়োজনীয় নির্দেশনা দেওয়ার পর আপনি সিনেমা দেখতে পারবেন বা গান শুনতে পারবেন। আর এতে সময় লাগে প্রায় ১০ থেকে ১৫ মিনিট। তাই বিমানে উঠেই জিজ্ঞেস করবেন না, সিনেমা দেখানো হচ্ছে না কেন? শুরুর সময়টাতে ম্যাগাজিনে চোখ বুলিয়ে নিতে পারেন। প্রয়োজনীয় নির্দেশনা শেষ হলে সামনের মনিটর আপনার নিয়ন্ত্রণে চলে আসবে, তখন আপনি পছন্দমতো ছবি বা গান শুনতে পারবেন। আর হ্যাঁ, বিমান পুরোপুরি আকাশে ওঠার আগে ওয়াই-ফাই সেবা পাওয়া যায় না। কাজেই বিমানে উঠেই ইন্টারনেট কানেকশন নিয়ে প্রশ্ন করবেন না। ধৈর্য ধরুন, কর্তৃপক্ষই বলে দেবে কখন আপনি ওয়াই-ফাই ব্যবহার করতে পারবেন। তা ছাড়া সব বিমানে ওয়াই-ফাই সেবা নাও থাকতে পারে। যদি থাকে সেটা বিমান কর্তৃপক্ষই আপনাকে বলে দেবে।

LULU

এছাড়াও অনেকেই কানেক্টিং ফ্লাইটে যেয়ে  থাকেন। মূলত গন্তব্যে পৌঁছাতে বিমান পরিবর্তন করে অন্য যে বিমানে উঠতে হয়, তাকেই কানেক্টিং ফ্লাইট বলা হয়। আপনি যে বিমানে আছেন, সেই বিমানের বিমানবালার সঙ্গে আপনার কানেক্টিং বিমানের কোনো যোগাযোগ থাকে না। তারপরও আপনি যদি বর্তমান বিমানের বিমানবালাকে প্রশ্ন করেন, কানেক্টিং ফ্লাইটটা একটু দেরি করতে পারবে কি না, তাহলে সেটা ঠিক হবে না। কারণ, এই বিষয়টি বিমানবালার হাতে নেই। বরং ট্রানজিট বিমানবন্দরে নেমে যথাযথ কর্তৃপক্ষের সঙ্গে কথা বলে বিষয়টির সুরাহা আপনাকেই করতে হবে।

 

আবার অনেকেই বিমান বালাকে বকশিশ দিতে চান, যা প্রথমত, বিমানের নীতিমালার ঘোরবিরোধী এবং দ্বিতীয়ত, বিমানবালাদের জন্য এটি অপমানজনক। তাই যদি তাদের সেবা বা ব্যবহারে আপনি মুগ্ধ হয়ে থাকেন, হাসিমুখে একটা ধন্যবাদ দিন, সেটাই যথেষ্ট।

 

এছাড়াও অনেকে ইকোনমি ক্লাসের টিকিট করেও বিজনেস ক্লাসের সিটগুলো খালি দেখে সেখানে গিয়ে বসে পড়েন। আবার কেউ কেউ ব্যাগ উপরে উঠাতে বিমান বালাকে ডেকে বসেন, যা তাদের কাজের মধ্যে পড়ে না। বিমানে নিজের ব্যাগ নিজেকেই উঠিয়ে রাখতে হবে অথবা নিজে না বুঝলে সহযাত্রী থেকে সহযোগিতা নিতে পারেন, কিন্তু বিমানবালাদের এ ধরনের অনুরোধ না করাই উত্তম। 

 

যাত্রীদের বিভিন্ন শারীরিক সমস্যা সামাল দেওয়ার জন্য ফ্লাইটেই চিকিৎসক থাকেন। যদি অসুস্থ বোধ করেন, তাহলে সেটা বিমানবালাদের জানাতে পারেন, সাহায্য চাইতে পারেন। কিন্তু নিজেই ডাক্তারি ফলিয়ে তাদের কাছে ওষুধ চাইবেন না। কারণ, তাদের ওষুধ দেওয়ার এখতিয়ার নেই এবং দ্বিতীয়ত, সেটা তাদের কাজও নয়।

 

একই ফ্লাইটে বন্ধুবান্ধব বা পরিচিতি কারো দেখা পেয়ে যেতে পারেন। সে ক্ষেত্রে একসঙ্গে পাশাপাশি সিটে বসে যাওয়ার ইচ্ছা জাগতেই পারে। সে ক্ষেত্রে কখনোই বিমানবালাদের অনুরোধ করবেন না, সিট বদলে দেওয়ার জন্য। বড়জোর আপনি নিজে সেটা বিনীতভাবে চেষ্টা করে দেখতে পারেন। আপনার অনুরোধে যদি কোনো যাত্রী নিজের সিট পরিবর্তন করে আপনার পরিচিত বা বন্ধুর সঙ্গে যাওয়ার ব্যবস্থা করে দিতে রাজি থাকেন, তাহলেই কেবল আপনার আশা পূরণ হবে।

 

ফ্লাইটের মধ্যে দুম করে জিজ্ঞেস করে বসবেন না, বিমান এখন কোথায় আছে বা কোন জায়গার ওপর দিয়ে উড়ে যাচ্ছে? কারণ, আকাশে কোনো সাইনবোর্ড দেওয়া থাকে না, যা দেখে বিমানবালা আপনার প্রশ্নের জবাব দেবেন। ধৈর্য ধরে অপেক্ষা করুন, কারণ কাছাকাছি এলে সেটা ক্যাপ্টেন জানিয়ে দেবেন অথবা সামনের মনিটরেও সেটা আপনি দেখতে পারবেন।

 

বিমান বালাদের কাছে কলম চাওয়া আপনার কাছে খুবই সাধারণ একটি প্রশ্ন মনে হতে পারে। তবে এটা বেশ বিরক্তিকর একটা ব্যাপার বিমানবালাদের জন্য। তারা প্রায়ই এ ধরনের বিব্রতকর অবস্থার মধ্যে পড়েন। কারণ, অনেকেই তাদের কাছে কলম ধার চান। কলম সঙ্গে নিয়ে ঘোরাটা তাদের কাজ নয়। তাই বিব্রতকর পরিস্থিতি এড়াতে উপরে উল্লেখিত কাজ গুলো করা থেকে বিরত থাকুন।

 

আরো পড়ুন:

সবাই আমার স্ত্রীকে চোরের বউ বলে আমাকে জামিন দেন

পাসপোর্ট অফিসে কোটি টাকার ঘুষ বাণিজ্য, অনুসন্ধানে দুদক 

প্রবাসী বন্ডে কমছে মুনাফার হার

ওমানে সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত জসিম

করোনা মোকাবিলায় ওমানের চেয়েও এগিয়ে বাংলাদেশ

 

আরো দেখুনঃ

প্রবাস টাইম সব ধরনের আলোচনা-সমালোচনা সাদরে গ্রহণ ও উৎসাহিত করে। অশালীন ও কুরুচিপূর্ণ মন্তব্য পরিহার করুন। এটা আইনত দণ্ডনীয় অপরাধ।