প্রবাস টাইম
বাংলাদেশবুধবার , ৮ জুন ২০২২
  1. অন্যান্য
  2. অপরাধ
  3. আন্তর্জাতিক
  4. আমেরিকা
  5. ইউরোপ
  6. এশিয়া
  7. ওমান
  8. করোনা আপডেট
  9. কৃষি
  10. খেলাধুলা
  11. খোলা কলম
  12. চাকরি
  13. জাতীয়
  14. জানা অজানা
  15. জীবনের গল্প
 
আজকের সর্বশেষ সবখবর

ওমান থেকে আজ রাতেই মুসাকে নিয়ে দেশে ফিরবে পুলিশ

শহিদুল ইসলাম
জুন ৮, ২০২২ ৫:২৫ অপরাহ্ণ
Link Copied!

আজ রাতেই ওমান থেকে খুনি মুসাকে নিয়ে দেশের উদ্দেশ্যে রওয়ানা দিবে পুলিশের বিশেষ টিম। গোপন সংবাদের ভিত্তিতে জানাগেছে, রাজধানীর মতিঝিল থানা আওয়ামী লীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক জাহিদুল ইসলাম ওরফে টিপু ও কলেজছাত্রী সামিয়া আফরিন প্রীতি হত্যা মামলার আসামি সুমন শিকদার ওরফে মুসাকে ওমান থেকে দেশে আনার প্রক্রিয়া সম্পন্ন হয়েছে। পুলিশের আন্তর্জাতিক সংস্থা ইন্টারপোলের মাধ্যমে তাঁকে ফিরিয়ে আনতে বাংলাদেশ পুলিশের তিন সদস্যের একটি দল বর্তমানে ওমানে আছেন। আজ রাতের একটি ফ্লাইটে খুনি মুসাকে নিয়ে দেশের উদ্দেশ্যে রওনা দিবে এই বিশেষ টিম।

ডিবির সূত্র জানায়, গত ৩০ মে পুলিশ সদর দপ্তর ডিবি পুলিশের অতিরিক্ত উপকমিশনার (এডিসি) শাহিদুর রহমান, এডিসি রফিকুল ইসলাম ও পুলিশ সদর দপ্তরের এনসিবি শাখার সহকারী পুলিশ সুপার মোহাম্মদ ফয়েজ উদ্দিনকে ওমান যাওয়ার অনুমতি দেয়। গত রবিবার (৫-জুন) তাঁরা ওমানের রাজধানী মাস্কাটে পৌঁছান। তাঁরা সেখানে এই আসামি হাতে পাওয়ার জন্য প্রয়োজনীয় কর্মপ্রক্রিয়া শেষ করেন।

সূত্র জানায়, কয়েকজন আসামিকে গ্রেপ্তারের পর ওই হত্যাকাণ্ডের মূল পরিকল্পনাকারী হিসেবে মুসার নাম আসে। একসময় মিরপুরকেন্দ্রিক সন্ত্রাসী মুসা অপরাধ জগতের পলাতক শীর্ষ সন্ত্রাসী বিকাশ-প্রকাশের অনুগত বলে পরিচিত।

মুসার বিরুদ্ধে পল্লবী থানায় ১০টি এবং মতিঝিল থানায় একটি মামলা আছে। হত্যা, অস্ত্র, মাদক ও চাঁদাবাজির আইনে এসব মামলা করা হয়। পুলিশ সূত্র জানায়, মুসার পাসপোর্টের নাম সুমন শিকদার। তাঁর বাবার নাম আবু সাঈদ শিকদার। মা জরিনা আক্তার। স্ত্রী নাসিমা আক্তার। চট্টগ্রামের আনোয়ারা থানার পরাইখারা কইখাইন গ্রামে তাঁর বাড়ি।

 

আরো পড়ুন:

ওমানে দুই নারী সহ পাঁচ প্রবাসী গ্রেফতার

বাংলাদেশী কিলার মুসাকে আনতে ওমান যাচ্ছে পুলিশের একটি স্কট টিম

নতুন তেল ক্ষেত্রের সন্ধান পেল ওমান

প্রায় ৯০ শতাংশ কমে ওমানে শুরু হলো প্রবাসীদের নতুন নবায়ন ফি

স্বরনকালের ভয়াবহ দুর্ঘটনার সাক্ষি চট্টগ্রাম

আরো দেখুনঃ

প্রবাস টাইম সব ধরনের আলোচনা-সমালোচনা সাদরে গ্রহণ ও উৎসাহিত করে। অশালীন ও কুরুচিপূর্ণ মন্তব্য পরিহার করুন। এটা আইনত দণ্ডনীয় অপরাধ।