নির্ধারিত খরচের ৪ গুণ বেশি খরচে মালয়েশিয়া যাচ্ছেন কর্মীরা

বিশেষ প্রতিনিধি
আপডেটঃ সেপ্টেম্বর ২৫, ২০২২ | ৭:১১
বিশেষ প্রতিনিধি
আপডেটঃ সেপ্টেম্বর ২৫, ২০২২ | ৭:১১
Link Copied!
নির্ধারিত খরচের ৪ গুণ বেশি খরচে মালয়েশিয়া যাচ্ছেন কর্মীরা

বাংলাদেশের বহুল প্রত্যাশিত শ্রম বাজার মালয়েশিয়া। দেশটিতে আগামী তিন বছরের ১০ লক্ষাধিক কর্মী যাওয়ার কথা বাংলাদেশ থেকে। নানা নাটকীয়তার পর গেলো মাস থেকে কর্মী যাওয়াও শুরু করেছে দেশটিতে। তবে কর্মী প্রেরণে সরকার-নির্ধারিত খরচ ৭৮ হাজার ৯৯০ টাকা নির্ধারণ করা হলেও কর্মীপ্রতি খরচ হচ্ছে তিন থেকে সাড়ে চার লাখ টাকা। অর্থাৎ, নির্ধারিত খরচের ৪ গুণ পর্যন্ত অতিরিক্ত অর্থ গুনতে হচ্ছে কর্মীদের। সিন্ডিকেটের কারণেই বেড়েছে অভিবাসন খরচ এমনটি জানিয়েছেন বায়রার এক সিনিয়র নেতা। নাম গোপন রাখা সাপেক্ষে উক্ত নেতা বলেন, এই সিন্ডিকেটের সাথে অনেক রাঘববোয়াল জড়িত। ক্ষোভ প্রকাশ করে উক্ত নেতা আরো বলেন, ‘সরকারের পক্ষথেকে খরচ নির্ধারণ করে দিলেও এটি বাস্তবায়নে কোন নজরদারি নেই।’ 

এদিকে অতিরিক্ত খরচে মালয়েশিয়া গেলেও ক্যামেরার সামনে মুখ খুলছেননা প্রবাসীরা। কিশোরগঞ্জ থেকে এক কর্মী প্রবাস টাইমকে বলেন, “আমি গ্রিন ল্যান্ড এজেন্সির মাধ্যমে সাড়ে চার লাখ চুক্তিতে মালয়েশিয়া যাচ্ছি। তারা আমাকে এয়ারপোর্টের কার্গোতে কাজ দেওয়ার কথা বলেছে। তবে টাকার অংকের কথা কাউকে বলতে নিষেধাজ্ঞা দেওয়া আছে।’ 

এতদিন বাংলাদেশের নির্দিষ্ট ২৫টি রিক্রুটিং এজেন্সি ও ২৫০ সাব-এজেন্ট মালয়েশিয়ায় কর্মী পাঠানোর অনুমতি পেয়েছিলো। তবে, এবার যুক্ত হতে যাচ্ছে আরো ৭৫ এজেন্সি। এরইমধ্যে সর্বমোট ৭৫ টি রিক্রুটিং এজেন্সিকে অনুমোদন দিয়েছে দেশটির মন্ত্রিসভা। ২২ সেপ্টেম্বর মালয়েশিয়া মানবসম্পদমন্ত্রী দাতুক সেরি এম সারাভানান এই তথ্য জানিয়েছেন। 

বিজ্ঞাপন

তবে গতি নেই কর্মী সংস্থানে, এক মাসে যেতে পারেনি ১ হাজার কর্মীও। দেশটিতে কর্মী পাঠানোর ক্ষেত্রে জড়িতরা বলছেন, দূতাবাস থেকে চাহিদা পত্রে সত্তায়নে বিলম্ব হচ্ছে। সেইসাথে, বর্তমানে যারা মালয়েশিয়া শ্রমিক পাঠাচ্ছেন, এদের অধিকাংশই নতুন। এইসব বিভিন্ন কারণে কর্মী যাওয়ায় গতি আসছেনা। এদিকে, বৃহস্পতিবার মালয়েশিয়ায় কর্মী প্রেরণে গতি বাড়াতে নিয়োগকর্তাদের প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন দেশটির মানবসম্পদমন্ত্রী এম সারাভানান। 

সংশ্লিষ্টরা বলছেন, চিহ্নিত রিক্রুটিং এজেন্সির মালিকরা মন্ত্রণালয়ের কোনো নিয়মনীতি না মেনেই তাদের ইচ্ছেমতো কর্মীদের স্বাস্থ্যপরীক্ষা করাচ্ছেন। এর বিনিময়ে তারা অবৈধভাবে লাখ লাখ টাকা অসহায় কর্মীদের কাছ থেকে হাতিয়ে নিচ্ছেন। আদায় করছেন সরকার নির্ধারিত অর্থের চেয়ে কয়েকগুণ বেশি। সরকারের পক্ষথেকে কঠোরভাবে মনিটরিং না করলে এতে চরম অনিয়মের আশঙ্কা করছেন অভিবাসন বিশেষজ্ঞরা।

আরো পড়ুন:  রেমিট্যান্স বাড়াতে প্রবাসীদের দাবী মেনে নেওয়ার আহ্বান

বিজ্ঞাপন

শীর্ষ সংবাদ:
মরু এলাকায় তুষারপাত ঘটিয়ে তাক লাগিয়ে দিলেন প্রিন্স সালমান বিকাশ-রকেটে সরাসরি রেমিট্যান্স আনতে বাংলাদেশ ব্যাংকের অনুমোদন ওমানের মাস্কাট বিমানবন্দরে গাঁজাসহ দুই প্রবাসী গ্রেপ্তার বাড়ি লিখে না দেওয়ায় স্বামীকে কুপিয়ে হত্যা করল স্ত্রী ওমান উপসাগরে ট্যাংকারে হামলা: অভিযোগ অস্বীকার ইরানের খেলা নিয়ে তর্ক, আর্জেন্টিনার সমর্থককে খুন চোরাচালানের মাধ্যমে প্রতিদিন ২০০ কোটির সোনা আসছে দেশে কাতার রাজপরিবারের সম্পদ দেখে অবাক বিশ্ব মরুর সৌন্দর্যে মুগ্ধ পর্যটকরা, আরব অর্থনীতিতে নতুন সম্ভাবনা বিনা খরচে সরকারীভাবে কর্মী যাচ্ছে মালয়েশিয়া ওমানে কাজের সংকট, তবুও বাংলাদেশ থেকে নতুন শ্রমিক যাওয়ার ঢল সৌদিতে মর্মান্তিক সড়ক দুর্ঘটনায় এক পরিবারের ৮ জনের মৃত্যু কাতার বিশ্বকাপে মুসলমানের ঈমানি শক্তির প্রমাণ পাওয়া গেল- অভিনেতা সিদ্দিক এসএসসিতে পাসের হার ৮৭.৪৪ শতাংশ হাই ভোল্টেজ বৈদ্যুতিক লাইনে বিধ্বস্ত প্লেন দ্বিতীয় দিনে মেক্সিকান সমর্থকের ইসলাম গ্রহণ লাগেজে জ্যান্ত বিড়াল, ধরা পড়ল বিমানবন্দরে ২৫ দিনে এলো ১৩৪ কোটি ৭১ লাখ ডলার রেমিট্যান্স সৌদিতে ব্যাপক ধরপাকড়, এক সপ্তাহে ১৬ হাজার অবৈধ প্রবাসী গ্রেফতার ওমানে খোলা স্থানে ময়লা ফেললে ১০০ রিয়াল জরিমানা